‘আশান উজ জামান’ এর “অন্যচোখে” - সাড়া জাগানো মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ।। আল-আমীন আপেল

‘আশান উজ জামান’ এর “অন্যচোখে” - সাড়া জাগানো মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ।। আল-আমীন আপেল

নিকষ কালো অন্ধকার সময় পেরিয়ে ব্রিটিশ-ওলন্দাজদের পা চেটে চেটে চাকর হওয়া সরল সহজ বাঙালি স্বাধীনতার স্বাদ যতসামান্য পেতে চেয়েছিলো। কিন্তু, এ চাওয়া যেনো অন্যায় চাওয়া হয়ে উঠেছিলো। তাই তো ডালপালার সবুজ, ধানক্ষেতের সদ্য সবুজ আবার মরে যায়। বাঙালির শরীরে এবার যৌবন-তৃষ্ণা মেটাতে মরিয়া হয়ে ওঠে পাকিস্তানিরা। ওদের কালো নিঃশ্বাসে বাংলায় দিনের বেলায় যেনো নেমে এলো রাত। অত্যাচারের, রক্তের হোলি খেলার।

একাত্তরে যুদ্ধ হলো, একমাস-দুমাস নয়! পুরো নয়টা মাস। কালো রাতের ভোর হলো। উঠল ত্রিশ লক্ষ রক্তে লাল হওয়া সূর্য। দিক্বিদিক পতপত করে উঠলে সে সূর্য বুকে নিয়ে লাল-সবুজের পতাকা। ভূ-খণ্ডের নাম হলো বাংলাদেশ।

ধ্রুব এষের প্রচ্ছদে মোড়ানো, কথাশিল্পী আশান উজ জামান এর 'অন্যচোখে' উপন্যাস সে কথাই বলেছে পুরোটা সময়ে। বারোটি গল্প। সাদামাটা। আবার মোটেও 'সাদামাটা নয়' এমন গল্প।
সাধারণ পাঠক ভাববেন এটা নিছকই একটা মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আখ্যানগ্রন্থ। এমনটা ভাবা মোটেও দোষের কিছু নয়। কারণ, এমন করেও যে উপন্যাস লেখা যায় সেটা তো জানালেনই এই সূর্য-তরুণ কথাসাহিত্যিক।  সাহিত্যপাড়ার বড়োরা পড়লেন উপন্যাসটা। বললেন, এটাও উপন্যাস, গল্পগ্রন্থ নয়। ২২ মে ‘ম্যান বুকার আন্তর্জাতিক পুরস্কার ২০১৮’ পুরস্কার পেয়েছেন পোলিশ কথাসাহিত্যক ওগলা তোকারচুক। পুরস্কারপ্রাপ্ত উপন্যাসটিও 'অন্যচোখে' এর মতো কিছু গল্প নিয়ে। যে গল্পগুলি একটি আর একটির কথা বলে। আলাদা মনে হলেও আলাদা নয়, বুকে যেনো একই কথা গল্পগুলির। একটা প্রেক্ষাপটকে অবলম্বন করে এরা বাঁচে। ভীষণ রকম সখ্যতা গল্পগুলির। 'অন্যচোখে' উপন্যাসেও ঠিক তেমনটা হয়েছে।

সংক্রান্তি, জন্মদিন-এমনি বারোটি গল্পে, আশান উজ জামান তুলে এনেছেন মুক্তিযুদ্ধকে। এমন করে তুলে এনেছিলেন সেলিনা হোসেন, শওকত ওসমানরাও। তবে সেটা ছিল গতানুগতিক ধারায়। তারা মুদ্রার একপিঠ দেখেছেন, সময়ের একরূপ দেখেছেন, পাকিদের পাশবিকতা দেখেছেন। তার উপর ভর করেই উপন্যাসের মানচিত্র এঁকেছেন। আশান উজ জামান একটু রকম করেছেন। তিনি সময়ের একপিঠ উল্টে দেখেছেন, পাল্টে চেখেছেন তার স্বাদ। চেয়েছেন দেয়ালের এপারে দাঁড়িয়ে ওপারে, অন্যচোখে। এটাই অনন্য করেছে, আলাদা করেছে এই উপন্যাসকে, আর সব উপন্যাস থেকে।
বাঙালির শরীরে এবার যৌবন-তৃষ্ণা মেটাতে মরিয়া হয়ে ওঠে পাকিস্তানিরা। ওদের কালো নিঃশ্বাসে বাংলায় দিনের বেলায় যেনো নেমে এলো রাত। অত্যাচারের, রক্তের হোলি খেলার।
উপন্যাসে সবচে' বেশি হৃদয়স্পর্শী, অবাক করা অংশ দুটি। এক হচ্ছে 'ঘৃণা' অন্যটি 'বিজয়'। এ দুটি অংশই পুরো উপন্যাসকে তরুণ করে তুলেছে। পাকিদের সব যে পশু ছিল না, মানুষ ছিল কেউ কেউ তা 'ঘৃণা' অংশে চমৎকারভাবে উঠে এসেছে। ওদের অনেকেই জানতো না আসলে পুবে কি হচ্ছে। কি মরণোৎসব চলছে বাংলার সবুজে! কত রাত কলঙ্কিত হচ্ছে তাদেরই পাকিসেনাদের নোংরা পাশবিক চাহিদায়। কত রাতে ওদের বুটের আঘাতে কত নতুন স্বপ্নের বিনাশ হয়েছে। সে কথা কি ওদেশের সব মানুষ জানতো? ...জানতো না।

আর 'বিজয়' অংশে বাংলার মানুষদের স্বাধীন বাঙালি হবার গল্প, যুদ্ধের গল্প ফুটে উঠেছে অনন্য
রকম এক বর্ণনা ভঙ্গিতে। যে ভঙ্গিতে মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলেছেন শুধু এই তরুণ কথাশিল্পীই, প্রথম বারের মতো।

'অন্যপ্রকাশ' এর প্রকাশনায় একশ পঁয়ত্রিশ পৃষ্ঠার এ বইয়ের সর্বত্র আছে পাকিদের অত্যাচারের গন্ধ, শোষিত রাতে বাঙালির নিঃশব্দ আর্তনাদ, অত্যাচার সয়ে মৃত্যুপুরী থেকে ফুঁসে ওঠা নিরস্ত্র বাঙালির বিজয় ছিনিয়ে আনার গল্প। যেসব গল্প অন্যভাবে, ভিন্ন ঢপে বলে নি কেউ, কোনোদিন। বলেছেন শুধু কথাসাহিত্যিক আশান উজ জামান।


-#-#-#-#-#-#-#-#-#-#-
অন্যচোখে
আশান উজ জামান


প্রচ্ছদঃ ধ্রুব এষ
প্রকাশনায়ঃ অন্যপ্রকাশ, ঢাকা।
প্রকাশকালঃ ২০১৮
পৃষ্ঠাঃ ১৩৫
মূল্যঃ ২৫০ টাকা।

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য করার পূর্বে মন্তব্যর নীতিমালা সম্পাদকের স্বীকারোক্তি পাঠ আবশ্যক। ইচ্ছে করলে ই-মেইল করতে পারেন।