নতুন

[getBreaking results="10" label="recent"]

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ত্রৈমাসিক ম্যাগাজিন “স্বপ্ন’৭১” (ফেব্রুয়ারি-এপ্রিল ২০১৯)

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ত্রৈমাসিক ম্যাগাজিন “স্বপ্ন’৭১” (ফেব্রুয়ারি-এপ্রিল ২০১৯)
বাংলাদেশের ইতিহাসের যাত্রা শুরু ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের পথ ধরে। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বাংলা ভাষায় অনেক কাজ করা এখনও বাকী রয়ে গেছে। দেশপ্রেমের প্রবল তাড়না বুকে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের অজানা অনেক দিক নিয়ে কাজ করা যেতে পারে।

সাম্প্রতিককালে মানুষের মধ্যে দেশপ্রেমের চেতনা বিকশিত হওয়ায় মুক্তিযুদ্ধ প্রসঙ্গটিকে বহু বিচিত্রমাত্রায় অনুভব ও উপস্থাপনের প্রচেষ্টা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তার মধ্যে একটি হল মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ত্রৈমাসিক ম্যাগাজিন “স্বপ্ন’৭১”। পত্রিকাটি ৭ম বর্ষ পার করেছে। আজ আলোচনা করছি ৭ম বর্ষ ৯ম সংখ্যা (ফেব্রুয়ারি-এপ্রিল ২০১৯) নিয়ে। পত্রিকাটির এই সংখ্যার প্রধান আলোচ্য বিষয় গণঅভ্যুত্থান। ৫০ বৎসর আগে মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে সংঘটিত এই ঘটনা এখন তেমন আলোচনা হয় না। বাঙালির মুক্তিসংগ্রামের আহ্বান যে ঘটনার প্রাণ তার আবেদন এখনও ফিকে হয়ে যায় নি; তার প্রমাণ এই পত্রিকা। এর বর্তমান আলোচ্য সংখ্যাটি "গণঅভ্যুত্থানের ৫০ বছর" প্রসঙ্গকে ঘিরে আবর্তিত।

মুক্তিযুদ্ধ একটি ঘটনা। কিন্তু এর প্রভাবে কত সহস্র অনুভূতি ও অভিজ্ঞতার জন্ম যে হয়েছে তা বলা কঠিন। তরুণ প্রজন্ম সেই অভিজ্ঞতাগুলির কিছু অংশ পেতে পারে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত বিভিন্ন রচনা, নির্মাণ তথা প্রকাশনা থেকে। মুক্তিযুদ্ধের নানাবিধ ঘটনা ও দিক সম্পর্কে তরুণ প্রজন্মের জানার আগ্রহ অনেক। তারা মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি সত্য ঘটনা জানতে চায়। স্বপ্ন’৭১ টীম তরুণদের এই আগ্রহের কথা জানেন। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তরুণদের সর্বগ্রাসী জিজ্ঞাসা সম্পর্কে স্বপ্ন’৭১ এর কর্মীবৃন্দ সচেতন। তরুণদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রত্যাশা মেটাতে তারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তাদের পরিশ্রমের মাত্রা বোঝা যায় দীর্ঘ সূচিপত্র দেখলে।

মোট ১৫টি প্রধান শিরোনামের ছায়ায় সম্পাদকীয় সহ মোট ৫৫টি রচনা স্বপ্ন’৭১ ম্যাগাজিনের এই সংখ্যায় প্রকাশ করা হয়েছে। ২০৮ পৃষ্ঠার মধ্যে এতগুলো লেখা ছাড়াও রয়েছে অনেক ছবি। সূচিপত্রের প্রধান শিরোনামগুলোর দিকে একবার চোখ বুলিয়ে নেয়া যেতে পারে।

এত বেশি সংখ্যক রচনা প্রকাশ করা হয়েছে যে সবগুলোর শিরোনাম প্রকাশ করা কঠিন। সেক্ষেত্রে শুধু প্রসঙ্গগুলো প্রকাশ করা হল। প্রসঙ্গ তথা প্রধান শিরোনামগুলো দেখলেও প্রকাশকের মননগত ব্যাপকতা ও বিশালতা অনুভব করা যাবে।
  • সম্পাদকীয়
  • জবানবন্দি
  • সাক্ষাৎকার
  • প্রবন্ধ
  • গণঅভ্যুত্থানে শহীদ
  • নারী সংগ্রামে গণঅভ্যুত্থানে
  • উপন্যাসে গণঅভ্যুত্থান
  • কবিতা
  • নানা দিকে
  • তরুণের ভাবনায় মুক্তিযুদ্ধ
  • মুক্তিযুদ্ধ
  • সীমানা পেরিয়ে
  • আয়োজন
  • তরুণ লেখকের মুক্তিযুদ্ধের গল্প
  • বইপত্র
  • গণঅভ্যুত্থানের শহীদদের তালিকা
ম্যাগাজিনটির এই সংখ্যার প্রধান আলোচ্য গণঅভ্যুত্থান। গণঅভ্যুত্থানের ৫০ বৎসরকে ঘিরে এর যাবতীয় আলোচনা, গল্প, কবিতা, স্মৃতিকথা, সাক্ষাৎকার, প্রকাশনা, বিদেশী সহৃদয়তা সবকিছু আবর্তিত হয়েছে। প্রসঙ্গটি যেমন ব্যাপক, তার আয়োজনও তেমনি। সম্পাদক সম্ভাব্য সকল প্রকারের রচনার কথা ভেবেছেন এবং সেগুলো সংগ্রহ করেছেন। বলা যায় সার্বিক উপস্থাপন যথেষ্ট বৈচিত্রপূর্ণ, তথ্যবহুল ও চেতনায় সমৃদ্ধ।
পত্রিকার বর্তমান সংখ্যা সম্পর্কে সম্পাদক তার 'সম্পাদকীয়'তে দু'এক কথায় পরিষ্কারভাবে বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন -
৫০ বছর আগে টকবগে তরুণরা এই দেশের জন্য যা দিয়েছেন, তা অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। ঠিক ৫০ বছর পর সেই তরুণরা বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কী ভাবছেন? এমন ২০ জন তরুণের লেখায় তা তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে এই সংখ্যাটিতে। আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় বঙ্গবন্ধুর জবানি, সেই সময়ের বলিষ্ঠ ছাত্রনেতা তোফায়েল আহমেদ ও মুক্তিযুদ্ধের সময়ের প্রথম চিত্র প্রদর্শনীর অন্যতম শিল্পী বীরেন সোমের সাক্ষাৎকার, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ ফরহাদ, লেখক ও কলামিষ্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ সেলিম জাহান, মুক্তিযোদ্ধা এম এস এ মনসুর আহমেদ, গবেষক রুবানা শারমীন ও এম এ আজদ খান ভাসানীর প্রবন্ধ, গণঅভ্যুত্থানের শহীদদের নিয়ে লেখা, নারী সংগ্রামে কবি বেগম সুফিয়া কামাল,  সেই সময়ে ঘটনাপুঞ্জি, শহীদের তালিকা, গণঅভ্যুত্থানে নিয়ে দুই প্রখ্যাত লেখক আখতারুজ্জামান ও আনিসুল হকের উপন্যাসে অংশবিশেষ, কবিতা, ওপার বাংলার তিন প্রজন্মের তিনটি লেখা, ছয় দফা, এগারো দফা, শ্লোগান, বই আলোচনাসহ নানাবিষয়ক লেখা, নিঃসন্দেহে ভালো লাগবে।  (বানান রীতি অবিকৃত রাখা হয়েছে)

স্বপ্ন’৭১ পত্রিকাটির উদ্দেশ্য মহৎ, প্রচেষ্টাতেও তারা আন্তরিক। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এমন তথ্যবহুল পত্রিকা বাংলাদেশে আরও আছে বলে আমাদের জানা নেই। ৭ বৎসর ধরে এই পত্রিকাটি প্রকাশ হচ্ছে, অথচ এর নাম ডাক ততোটা প্রচারিত নয়। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রতিটি রচনার ব্যাপক প্রচার হওয়া দরকার। আমার মনে হয় এই পত্রিকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের প্রচার বিষয়ে চিন্তা করা দরকার।

যা হোক, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে সবরকমের প্রকাশনা দেশপ্রেম সচেতন সকলের পাঠ করা উচিত। ইতিহাস বিকৃত করার বিভিন্নরকম প্রচেষ্টা স্বাধীনতাবিরোধীরা করে চলেছে। এরকম সময়ে সঠিক ইতিহাসকে চিহ্নিত করে সকলের সামনে যথাযথভাবে তুলে ধরা প্রয়োজন। ইতিহাস বিস্মৃতপ্রবণ জাতি বাঙালি; আবার কালের প্রভাব অনিবার্য। এ থেকে রক্ষা করতে পারে মুদ্রণ কার্যক্রমগুলি। আর এর দায় এসে পরে শিক্ষিত ব্যক্তিবর্গের উপর। যা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই।

স্বপ্ন’৭১ পত্রিকাটি আরও অধিকসংখ্যক মানুষের হাতে পৌঁছাক। ইতিহাসের বিভিন্ন প্রামাণ্য উপাদান মানুষ নিজেই বিশ্লেষণ করার সুযোগ পাক। তারা নিজেরাই খুঁজে নিতে পারবে তাদের ভবিষ্যতের গতিপথ।

-০-০-০-০-০-০-
স্বপ্ন'৭১
মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক ত্রৈমাসিক
ফেব্রুয়ারি-এপ্রিল ২০১৯ (৭ম বর্ষ, ৯ম সংখ্যা)
গণঅভ্যুত্থানের ৫০ বছর
সম্পাদক: আবু সাঈদ
প্রচ্ছদ: নিয়াজ চৌধুরী তুলি
প্রকাশক: মুক্তআসর, ঢাকা
পৃষ্ঠা: ২০৮
মূল্য: ১৫০ টাকা

0/আপনার মতামত?/টি মন্তব্য

মন্তব্য করার পূর্বে মন্তব্যর নীতিমালা সম্পাদকের স্বীকারোক্তি পড়ুন। ই-মেইল ফর্ম।

নবীনতর পূর্বতন